কৃষকদের কাছ থেকে ধান-চাল কেনা হোক

পত্রিকান্তরে খবরে প্রকাশ, চলতি আমন মৌসুমে চাল সংগ্রহ কার্যক্রমের আওতায় সরকার চাল মিলারদের কাছ থেকে চাল সংগ্রহ করবে। কৃষকদের কথা চিন্তা ভাবনা না করে সংশ্লিষ্ট বিভাগ গত নভেম্বর মাসের ২৬ তারিখে চাল মিলারদের কাছ থেকে ৩৩ টাকা কেজি দরে চাল কেনায় কৃষকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ দিকে বিভিন্ন জেলার মিলারদের সিন্ডিকেটে বর্তমান বাজারে মোটা জাতের ধানের দাম না থাকায় বর্গা চাষিদের দেড় থেকে দুই হাজার টাকা লোকসান গুণতে হচ্ছে, এমনটিই জানা গেছে কৃষকদের কাছ থেকে।

ুুুুুু

গত বোরো মৌসুমে প্রান্তিক কৃষকরা সরকারি গুদামে সরকার নির্ধারিত ২৩ টাকা দরে সরাসরি ধান দিতে পারায় ধানের ভালো দাম পেয়েছেন। চলতি আমন মৌসুমে সরকারি গুদামে কৃষকরা ধান বিক্রি করবে এমন আশায় মোটা জাতের ধান চাষ করেন। কিন্তু সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয় হঠাৎ করে শুধু মাত্র চাল (চাতাল) ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাল কেনার সিদ্ধান্ত নেয়ায় হতাশা হয়েছে। এতে তাদের লোকসান গুণতে হবে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা।

এক বিঘা জমিতে আমন ধান চাষ করতে ৮ হাজার থেকে সাড়ে ৮ হাজার টাকা খরচ হয়।  আর মোটা জাতের আমন ধান ১২/১৫ মণ উৎপাদন হয়। বর্তমানে সাড়ে ৭শ’ থেকে ৭শ’ ৬০ টাকা প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে বাজারে। এই হিসেবে  প্রতি বিঘায় ১০ থেকে ১১ হাজার টাকা আসছে। কিন্তু বর্গা চাষিদের জমির মালিককে অর্ধেক ধান দেওয়ার পর প্রতি বিঘায় দেড় থেকে দুই হাজার টাকা লোকশান গুণতে হয়। অভিযোগ উঠেছে, প্রান্তিক কৃষকরা যখন ধান মাড়াই শুরু করে তখন সরকার ধান-চাল কেনা শুরু করে না। মধ্যস্বত্তভোগীদের হাতে যখন ধান চলে যায় তখন সরকার ধান-চাল কেনা শুরু করে। এতে প্রতি বছর কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ হলেও মধ্যস্বত্তভোগীরা লাভবান হয়।

প্রতিবছর মৌসুমে চাল ব্যবসায়ীদের ইচ্ছে মাফিক দেরি করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয় ধান-চাল কেনা শুরু করে বলে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের অভিযোগ। এমতাবস্থায়, বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকার প্রান্তিক কৃষকদের কথা গুরুত্বের সাথে নেবেন এমনটাই আশা করেন সবাই। আর এ জন্য দ্রুত খাদ্য মন্ত্রাণালয়কে ঢেলে সাজিয়ে কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ও চাল কেনার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এতে কৃষকরা লাভবান হতে পারবেন ফলে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে বহু গুণ এমনটাই আশা কৃষি বিশেষজ্ঞ মহলের।

২. ডিসেম্বর মাস আমাদের মহান বিজয়ের মাস। ১৯৭১ সালে দখলদার পাকিস্তানের হাত থেকে দেশ মাতৃকার মুক্তির জন্য যাঁরা রক্ত দিয়েছেন, শহীদ হয়েছেন, সর্বোপরি আমাদের দিয়ে গেছেন স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। তাঁদের প্রতি আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি।  বিজয়ের পয়তাল্লিশ বছর পূর্তি উপলক্ষে কৃষিবার্তা পরিবারের পক্ষ থেকে সমগ্র জাতি তথা আমাদের সকল পাঠক, লেখক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়িদের প্রতি রইল বিজয়ের রক্তিম শুভেচ্ছা।

FacebookTwitterGoogle GmailEmailYahoo MailYahoo MessengerShare