দেশীয় প্রজাতির সকল মাছ সংরক্ষণে সরকার বদ্ধ পরিকর; মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মাননীয় প্রতিমন্ত্রী

 

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব মো: আশরাফ আলী খান খসরু এম.পি বলেছেন সকল দেশীয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে।

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী গত ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট এর সদর দপ্তর পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন। এ সময় তিন সদর দপ্তরের কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণ করেন।

মতবিনিময় সভায় মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক অগ্রগতি, সমৃদ্ধি ও সর্বোপরি দারিদ্র্য দূরীকরণে মৎস্য খাতের অবদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ ও কর্মসূচি বাস্তবায়নের ফলে এ খাতের উন্নয়ন ক্রমাগতভাবে বেড়েই চলেছে। ফলে দেশের বর্ধিত জনগোষ্ঠীর প্রাণিজ আমিষ, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, দরিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও রপ্তানি আয় বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। তিনি আরো বলেন, গবেষণার মাধ্যমে ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা ইতোমধ্যেই বিলুপ্তপ্রায় ১৯ প্রজাতির মাছের জিনপুল সংরক্ষণ করতে সক্ষম হয়েছেন। এসব মাছের পুষ্টিগুণ ও মূল্য অন্যান্য মাছের তুলনায় অনেক বেশি। ফলে দেশের জনসাধারণ সহজেই কম মূল্যে বেশি পুষ্টিগুণ সম্পন্ন মাছ খেতে পারছে। এ ধারা অব্যাহ্যত রাখতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার নানামুখী কর্মসূচী গ্রহণ করেছে বলে জানান মাননীয় প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট এর সম্মানিত মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ। উপস্থিত ছিলেন ইনস্টিটিউটের সম্মানিত পরিচালক (গবে. ও পরি.) ড. মোঃ নুরুল্লাহ, পরিচালক (প্রশা. ও অর্থ) ড. মো. খলিলুর রহমান। এছাড়াও ইনস্টিটিউটের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ইনস্টিটিউটের চলমান গবেষণা কার্যক্রম মাঠ পর্যায়ে পরিদর্শন করেন এবং গবেষণা কার্যক্রমের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

FacebookTwitterGoogle GmailEmailYahoo MailYahoo MessengerShare