স ম্পা দ কী য়

 

খাদ্যে ফরমালিন ও নতুন আইনের প্রয়োগ

সাম্প্রতিক সময়ে খাদ্য দ্রব্যে ফরমালিনের প্রয়োগ নিয়ে সারা দেশ ব্যাপি ব্যাপক হৈচৈ পড়ে যায়। মানুষ খাদ্য গ্রহণ করে জীবন ধারণের তাগিদে। সে খাদ্য হওয়া উচিত নিরাপদ ও স্বাস্থ্য সম্মত। কিন্তু একশ্রেণীর অসাধু ব্যাবসায়ী অতি মুনাফার জন্য ফরমালিন তথা নানা ধরণের রাসয়নিক প্রিজারবেটিভ ব্যবহার করে যা কিনা মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণ ও বটে। এনিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফরমালিন বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। কিন্তু আইনের ফাঁক ফোকর গলিয়ে অপরাধিরা বেরিয়ে যায়। এ প্রেক্ষাপটে ফরমালিনের অপব্যবহারের অপরাধে সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ডের বিধান রেখে জাতীয় সংসদে নতুন আইন পাস করা হচ্ছে। আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক সম্প্রতি ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন বিষয়ে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই তথ্য দেন।

আমরা মনে করি খাদ্যে ফরমালিন মেশানোর আইনের যে সীমাবদ্ধতা ছিল তা নতুন আইনে দূর করা সম্ভব হবে। সময় উপযোগী এমন আইন করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সাধুবাদ পাওয়ার দাবীদার বলে আমরা মনে করি। যদিও বিভিন্ন মহল থেকে মৃতুদন্ডের বিধান রেখে আইন করার দাবী জানানো হয়েছে। কেননা খাদ্যে বিষাক্ত ফরমালিন মেশানো মানে বিষ মিশিয়ে মানব হত্যার শামিল।

আমরা মনে করি মানবতা বিধ্বংসি এমন অপরাধে যারা দুষ্ট তাদের কঠোর আইনের আওতায় আনতে হবে। তাদেরকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতেই হবে। এ আইনের যথাযথ প্রয়োগ হবে কিনা এমন আশংকা অমূলক নয়। কারণ আমাদের দেশে অনেক আইন রয়েছে তার যথাযথ প্রয়োগ বা বাস্তবায়ন অনেক সময় দৃশ্যমান হতে দেখা যায় না। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক হতে হবে। এর পাশাপাশি জন সচতেনতা মূলক প্রচারণাও চালাতে হবে। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞ মহল থেকে ভেজাল নিয়ন্ত্রণে সরকারি সংস্থার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। তারা মনে করেন, দেশের একমাত্র মান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বিএসটিআই যথাযথভাবে কাজ করছে না। এ ছাড়া জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, সিটি কর্পোরেশন ও বিএসটিআইয়ের ভেজালবিরোধী অভিযান প্রয়োজনের চেয়ে কম বলেও অভিযোগ ওঠে। আশার কথা যে, ফরমালিনের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে আমদানিকারকদের নিবন্ধনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে ফরমালিন আমদানি কমবে বলে আশা করা হচ্ছে। সরকারের ব্যবস্থাপনা কিংবা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার পক্ষে কেবল আইন বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। এর জন্য ব্যবসায়ীসহ সবার সমন্বিত চেষ্টা থাকতে হবে। পরিশেষে, ফরমালিনের অবাধ আমদানি বন্ধ করতে শুধু সরকারি পর্যায়ে টিসিবির মাধ্যমে আমদানির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং নতুন আইন যাতে ঠিকঠিকভাবে প্রতিপালিত হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে বলে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করেন।

২. এক মাস সিয়াম সাধনার পর আবার এলো পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে কৃষিবার্তার সকল পাঠক, লেখক, গ্রাহক ও বিজ্ঞাপন দাতাদের প্রতি রইল ঈদ মোবারক।

FacebookTwitterGoogle GmailEmailYahoo MailYahoo MessengerShare