হরেক পদের ভর্তা

প্রিয় পাঠক! ভর্তা খেতে পছন্দ করে না এমন হয়ত কাউকে পাওয়া যাবে না। বরং ভর্তা খাবারে বেশ রুচি আনতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। অনেকের দৈনিক খাবারে ভর্তা থাকা চাই। আমাদের দেশের গ্রাম বাংলায় এখনো তৈরি হয় হরেক পদের ভর্তা। তাই নতুন নতুন মুখরোচক কিছু ভর্তার প্রস্তুত প্রণালী নিয়ে বরাবরের মতো এবারের রেসিপি সাজিয়েছেন  সালমা হুদা।

চ্যাপা শুঁটকির বাগার ভর্তা

উপকরণঃ চ্যাপা শুঁটকি ১০টি, দেশি পেঁয়াজ ১০টি, দেশি রসুন ২টি, শুকনা মরিচ ১২টি, সয়াবিন তেল সিকি কাপ, লবণ আধা চা চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি : শুঁটকি ১০-১৫ মিনিট ভিজিয়ে রেখে মাথা ও আঁশ ছাড়িয়ে পেট পরিষ্কার করে ধুয়ে নিতে হবে। শুঁটকির পানি নিংড়ে সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে পাটায় মসৃণ করে বাটতে হবে। ফ্রাইপ্যানে তেল গরম করে বাটা উপকরণগুলো অল্প আঁচে পাঁচ মিনিট নেড়েচেড়ে ভাঁজতে হবে। তেল ওপরে এলে ভর্তা চুলা থেকে নামিয়ে বাটিতে পরিচ্ছন্নভাবে পরিবেশন করুন।

লাউপাতার ভর্তা

উপকরণ : কচি লাউপাতা ১৫/২০টি, পেঁয়াজ বাটা ১/৩ কাপ, কাঁচামরিচ বাটা ২ চা চামচ, আদা বাটা ১ চা চামচ, জিরা বাটা ২ চা চামচ, সরষে বাটা ২ চা চামচ, সরষের তেল সামান্য, হলুদ গুঁড়া সিকি চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি সিকি কাপ, লবণ পরিমাণমতো, কাঁচামরিচ কুচি সামান্য।

প্রস্তুত প্রণালি : লাউপাতা ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। কয়েকটি পাতা বিছিয়ে রাখতে হবে। এবার ওপরের সব মসলা একটি বাটিতে মেখে বিছানো পাতাগুলোর মধ্যে রাখতে হবে এবং পাতা মুড়ে দিতে হবে। এর সঙ্গে বাকি পাতা দিয়ে মুড়ে সুতা দিয়ে বেঁধে দিতে হবে, যাতে মসলা বের না হয়। এবার বসা ভাতের মধ্যে মসলা মোড়ানো লাউপাতা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। ভাত হয়ে গেলে ভাত থেকে মসলা মোড়ানো পাতা বের করে পাটায় বেটে বা হাত দিয়ে চটকে নিযে কাঁচা সরষের তেল দিয়ে ভর্তা তৈরি করতে হবে। গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন। এটি রাইস কুকারে করা যায়।

বাহারি বেগুন ভর্তা

উপকরণঃ বেগুন (বড় সাইজ) ১টি, সরিষা বাটা ১ চা চামচ, পোস্ত দানা ১ চা চামচ, নারকেল মিহি বাটা ২ চা চামচ, টমেটো কুচি ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, মেথি আধা কাপ, সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো

প্রস্তুত প্রণালি : বেগুনের গায়ে তেল মাখিয়ে পুড়িয়ে নিতে হবে। এবার পানিতে রেখে খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে একটু ছেনে নিতে হবে। কড়াইয়ে তেল দিয়ে মেথি ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে একটু নরম হলে টমেটো দিয়ে নাড়াচাড়া করে টমেটো নরম হলে সরিষা, পোস্ত, নারকেল, কাঁচামরিচ ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে বেগুন দিয়ে কষাতে হবে। কড়াইয়ের তলা ছেড়ে এলে এবং একটু আঠালো হলে নামিয়ে নিতে হবে।

চিংড়ি মাছের ভর্তা

উপকরণ : চিংড়ি মাছ মাঝারি ২৫০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ ৫-৬টি, শুকনো মরিচ ৪-৫টি, তেল সামান্য এবং লবণ স্বাদ অনুযায়ী।

প্রস্তুত প্রণালি : মাছের খোসা ফেলে ভালো করে ধুয়ে নিন। এরপর সব উপকরণ একসঙ্গে নিয়ে চুলায় রেখে ভালো করে ভাজঁতে থাকুন। মাছ মচমচে হয়ে এলে সেটি নামিয়ে গরম গরম পাটায় বেটে নিন। সাজিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার চিংড়ি ভর্তা।

চিনাবাদাম ভর্তা

উপকরণ: চীনাবাদাম ভাজা (খোসা ছাড়া) ১ কাপ পেঁয়াজ কুচি, আধা কাপ, কাঁচামরিচ ৪/৫টি, ধনেপাতা কুচি ১ আঁটি, সরিষার তেল ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো।

কাঁচামরিচ কাঠখোলায় টেলে নিতে হবে। বাদামের লাল খোসা ঘষে তুলে ফেলে, পাটায? বেটে নিতে হবে। কাঁচামরিচ বেটে নিতে হবে। এবার তেলের সঙ্গে পেঁয়াজ, লবণ, ধনেপাতা কুচি চটকে বাদাম ও কাঁচামরিচ বাটা দিয়ে মাখাতে হবে। গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করা যায়।

FacebookTwitterGoogle GmailEmailYahoo MailYahoo MessengerShare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *